Chattogram Songlap
ইংল্যান্ডের লিগে ফিলিস্তিনের পতাকা ওড়ানো ‘বাংলাদেশে’র হামজার গল্প

ইংল্যান্ডের লিগে ফিলিস্তিনের পতাকা ওড়ানো ‘বাংলাদেশে’র হামজার গল্প

চট্টগ্রাম সংলাপ ডেস্ক: খবরটা এখনও খুব পুরানো হয়নি। চেলসিকে ১-০ গোলে হারিয়ে ইংলিশ ফুটবল লিগ এফএ কাপের শিরোপা জিতে নিয়েছে লেস্টার সিটি। মূল একাদশে না থাকলেও ম্যাচের শেষদিকে আয়োজে পেরেজের জায়গায় মাঠে নেমেছিলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত হামজা। তবে মাঠের চেয়ে হামজা চৌধুরী মানুষের মন বেশি জয় করেছেন ম্যাচ শেষে উদ্‌যাপনের সময়।

ফিলিস্তিনের পতাকা হাতে নিয়ে ম্যাচের পর গোটা ওয়েম্বলি প্রদক্ষিণ করেছেন এই বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণ। সঙ্গে ছিলেন দলের মুসলিম সতীর্থ ফরাসি ডিফেন্ডার ওয়েসলি ফোফানার। মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির ওপর ইসরায়েলিদের হামলার প্রতিবাদ এভাবেই জানিয়েছেন দুজন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের কল্যাণে সেই ছবি আর ভিডিও ক্লিপ ভাইরাল হতে সময় লাগেনি।

কে এই  হামজা চৌধুরী?

পেশাদার ফুটবলার দেওয়ান হামজা চৌধুরী খেলেন দুনিয়ার অন্যতম দামি ও নান্দনিক ফুটবল আসর ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে। লেস্টার সিটি ফুটবল ক্লাবের মূল দলের মিডফিল্ডার তিনি।

হামজার সাফল্যের মর্যাদা বুঝতে হলে ইংলিশ ফুটবল লিগ সম্পর্কে ধারণা থাকা জরুরি। বিশ্বকাপ ফুটবলের বাইরে ফুটবল জগতের অন্যতম দামি আর উত্তেজনাপূর্ণ আসর ইংলিশ ফুটবল লিগ। এই লিগের মোট চারটি ধাপ। দেশের সেরা ২০টি ক্লাব নিয়ে হয় প্রিমিয়ার লিগ। দ্বিতীয় সারির ২৪টি ক্লাব খেলে চ্যাম্পিয়নশিপ। তারপরে যথাক্রমে ‘লিগ ওয়ান’ এবং ‘লিগ টু’। এই দুটি লিগেও ২৪টি করে ক্লাব। চার ধাপের মোট ৯২টি ক্লাবের সমন্বয়ে গঠিত ইংলিশ ফুটবল লিগের প্রতিটি ধাপই একটি আরেকটির সঙ্গে যুক্ত।

২০১৬ সালে প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন হয় লেস্টার সিটি। এই ক্লাবের হয়ে ২০১৭ সালের ২৮ নভেম্বর হামজার অভিষেক ঘটে ইংলিশ ফুটবলের সবচেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ আসরে। এবারের আসরেও শীর্ষস্থানীয় এই ক্লাবের মূল দলে ছিলেন বাঙালি পরিবারের সন্তান হামজা চৌধুরী।

২০১৫-১৬ মৌসুমে বার্টন অ্যালভিয়ন হামজাকে ভাড়া করে (লোন) নিয়ে যায়। ক্লাবটির পক্ষে ১৮ বছর বয়সেই খেলেন লিগ ওয়ান। ভালো খেলে ক্লাবটি ওই বছর চ্যাম্পিয়নশিপে উন্নীত হয়।  পরের বছর বার্টন অ্যালভিয়ন আবারও হামজাকে ভাড়ায় নিয়েছিল চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে।

ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব–২১ জাতীয় দলেও তার অভিষেক হয়েছে। ইতোমধ্যে মেক্সিকো, বাহরাইন, আলজেরিয়া, রাশিয়াসহ বেশ কয়েকটি দেশের বিপক্ষে মাঠে নেমেছেন।

মাথাভর্তি ঝাঁকড়া চুলের এই তরুণ বাংলাদেশি পরিবারের সন্তান। বাবা দেওয়ান গোলাম মোর্শেদ চৌধুরী এবং মা রাফিয়া চৌধুরী।

হামজার জন্ম লাফবারা শহরে। তিন ভাই এক বোনের মধ্যে সবার বড়। ছোটবেলা থেকেই বেশ দুরন্ত ছিলেন। আর ফুটবলের প্রতি ছিল বেশ ঝোঁক।

পাঁচ বছর বয়সে হামজাকে লাফবারা ফুটবল ক্লাবে ভর্তি করা হয়। তখনই নিজের চেয়ে বয়সে দু-এক বছরের বড়দের সঙ্গে খেলত হামজা। ছয় বছর বয়সে এক ম্যাচ খেলতে গিয়ে ফুটবল ক্লাব নটিংহাম ফরেস্টের খেলোয়াড় অনুসন্ধানী দলের নজরে পড়েন হামজা। কয়েক দিন পর অন্য একটি ম্যাচে লেস্টার সিটির অনুসন্ধানীরাও তার দিকে দৃষ্টি ফেলে। উভয় দলই তাকে নিতে চায়।

শেষ পর্যন্ত তাকে লেস্টার সিটিতে ভর্তি করানো হয়। স্কুল ছুটির পর সপ্তাহে দুদিন করে প্রশিক্ষণ। আর শনি ও রোববার থাকত ম্যাচ।

২০১৩ সালে জিসিএসই (বাংলাদেশে এসএসসি) সম্পন্ন করার পর লেস্টার সিটি একাডেমিতে দুই বছরের বৃত্তি পান হামজা। ফুটবল প্রশিক্ষণের পাশাপাশি পড়াশোনারও দায়িত্ব নেয় তারা। একপর্যায়ে সেই লেস্টার সিটির হয়েই পুরোদমে খেলতে শুরু করেন। সর্বশেষ এফএ কাপের শিরোপা জেতা দলেও ছিলেন হামজা চৌধুরী।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ছয় মাস বয়স থেকে পরিবারের সঙ্গে হামজার বাংলাদেশে যাতায়াত শুরু। বাংলাদেশে হামজাদের বাড়ি হবিগঞ্জের বাহুবল থানার স্নানঘাট গ্রামে। তরুণ হামজা চৌধুরী নিজের বাঙালি পরিচয় নিয়ে গর্ববোধ করেন।

csonglap,net

আরও পড়ুন

উইজডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটার স্টোকস

newsdesk

‘কার্যত’ লকডাউন : বাংলাদেশে সময় বাড়ল, রোববার শুরু পশ্চিমবঙ্গে

newsdesk

আনোয়ারায় কৃষকের ধান কেটে দিলো যুবলীগ

newsdesk