Chattogram Songlap
গঙ্গার তীরে অসংখ্য মৃতদেহ, ভিড় করছে চিল-শকুনের দল

গঙ্গার তীরে অসংখ্য মৃতদেহ, ভিড় করছে চিল-শকুনের দল

চট্টগ্রাম সংলাপ ডেস্ক: ভারতের উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ ও বিহারে নদীতে গত কয়েক দিনে ভাসতে দেখা গেছে অসংখ্য মৃতদেহ। এছাড়া গঙ্গার তীরে মাটি সরে গিয়ে কিছু মৃতদেহ বেরিয়ে পড়েছে। তার ওপর চিল-শকুন গিয়ে বসছে।

পশ্চিমবঙ্গের আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশটিতে এমন ভিডিওচিত্রও সামনে এসেছে- যেখানে দেখা যাচ্ছে কোভিডে মৃতদের দেহ নদীতে ভাসিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

সম্প্রতি জানা গেছে, উত্তরপ্রদেশের ২৭ জেলায় গঙ্গার তীরে কবর দেওয়া হয়েছে অসংখ্য মৃতদেহ। গঙ্গার ১১৪০ কিলোমিটার যাত্রাপথে নদীর তীরে হাজারের বেশি মৃতদেহ কবর দেওয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

সম্প্রতি এক সংবাদমাধ্যমে খবর, উত্তরপ্রদেশের বিজনৌর, মেরঠ, মুজফ্ফরনগর, বুলন্দশহর, হাপুর, আলিগড়, বদায়ুঁ, শাহজাহানপুর, কনৌজ, কানপুর, উন্নাও, রায়বরেলী, ফতেপুর, প্রয়াগরাজ, প্রতাপগড়, মির্জাপুর, বারাণসী, গাজীপুর, বালিয়া প্রভৃতি জেলায় এই ছবি দেখা গিয়েছে। তার মধ্যে কানপুর, কনৌজ, উন্নাও, গাজীপুর ও বালিয়ার অবস্থা বেশি খারাপ।

কনৌজের গঙ্গাঘাটে কর্মরত রাজনারায়ণ পাণ্ডে নামের এক ব্যক্তি বলেন, বার বার মৃতদেহগুলি মাটি চাপা দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু গঙ্গার জলস্তর বাড়লে মাটি সরে যাচ্ছে। ফলে অনেক সময় মৃতদেহ নদীতে ভেসে যাচ্ছে।

কানপুরের শেরেশ্বর ঘাটের কাছে একই ছবি চোখে পড়ছে। স্থানীয়রাই বলছেন, মাটি সরে গিয়ে কিছু মৃতদেহ বেরিয়ে পড়ছে। তার ওপর চিল-শকুন গিয়ে বসছে। এর থেকে সংক্রমণ ও দূষণ দুইই ছড়াতে পরে বলে আশঙ্কা করছেন পরিবেশবিদরা।

উন্নাওয়ের অবস্থাও খারাপ। এখানকার দু’টি ঘাট (শুক্লাগঞ্জ ও বক্সার)-এর কাছে কুকুর-শেয়ালে অনেক মৃতদেহ টেনে বের করে নিয়ে আসছে।

গাজীপুরে অনেক মৃতদেহ বের করে শেষকৃত্যের ব্যবস্থা করছে পুলিশ ও প্রশাসন। কিন্তু প্রায় প্রতিদিন মৃতদেহ সেখানে এনে মাটিতে পুঁতে দেওয়া হচ্ছে। কে বা কারা এ ঘটনা ঘটাচ্ছে সেই বিষয়ে এখনও প্রশাসনের তরফে কিছু বলা হয়নি।

আরও পড়ুন:

‘কার্যত’ লকডাউন : বাংলাদেশে সময় বাড়ল, রোববার শুরু পশ্চিমবঙ্গে

করোনা রোগীকে কী বলবেন, কী বলা উচিত না

csonglap,net

আরও পড়ুন

ফিঞ্চের ‘ভারত-অস্ট্রেলিয়া যৌথ দলে’ যত চমক

newsdesk

চট্টগ্রামবাসীকে আবদুচ ছালামের ঈদ শুভেচ্ছা

newsdesk

নিষেধ উঠতেই ‘নিষিদ্ধ’ চিত্র চট্টগ্রামে

newsdesk